ম্যাজিক পেনসিলঃ ছোটোদের নিজস্ব বিভাগঃ অক্টোবর ২০২০

ম্যাজিক পেনসিল
ছোটোদের নিজস্ব বিভাগ
 
এবারের ম্যাজিক পেনসিল বিভাগে আমরা পেয়েছি চারটি ছবি ও দুটি ছড়া।
এসো পর পর দেখে নিই সেগুলি।
 
।। ১ ।। বি ।।
 
শিল্পীঃ সুভাঞ্জন চক্রবর্তী
বয়সঃ ৪ বছর ৬ মাস; ব্রুসেল, বেলজিয়াম
 
।। ২ ।। বি ।।
মা ও বাচ্চা মাকড়সা
শিল্পীঃ তৃষিত রক্ষিত
বয়সঃ পাঁচ, ক্লাসঃ গ্রুপ ২, স্কুলঃ দ্রি মাস্টার
 
।। ৩ ।। বি ।।
রঙচঙে রেল ইঞ্জিন
শিল্পীঃ ঐশিক মণ্ডল
বয়সঃ সাড়ে পাঁচ
 
।। ৪ ।। বি ।।
শিল্পীঃ শ্রীনিকা দাস
বয়সঃ ১০, ষষ্ঠ শ্রেণি, ডি এ ভি পাবলিক স্কু্ল
 
।। ৫ ।। ছড়া ।।
অন্য ছুটি
আহেলি সেনগুপ্ত
[বয়স ৯, চতুর্থ শ্রেণি]
 
আহা! কী সুন্দর আকাশ;
বইছে দূষিত বাতাস
লকডাউনে সবাই আটকে ঘরে,
ছোটোরা সব অনলাইনে পড়ে।।
 
কেউ তো আর ওঠে না ছাদে;
এখন সবাই ব্যস্ত ঘরের কাজে।
গাছপালারা তাই পারছে নিতে নিঃশ্বাস;
দূষণমুক্ত হচ্ছে পরিবেশ আজ।।
 
প্রার্থনা করছে বিশ্ব-শুদ্ধ লোক,
পৃথিবী তাড়াতাড়ি সুস্থ হোক।।
 
।। ৬ ।। ছড়া ।।
পুজোর মজা
মৃন্ময়ী ঘোষ
[অষ্টম শ্রেণী, তালডাংরা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
তালডাংরা, বাঁকুড়া]
 
নতুন জামা পরে সবাই
বেরিয়ে পড়ি দেখতে পূজা,
কী পূজা তার নাম জানো?
পোশাকি নাম দুর্গাপূজা।
 
দুর্গাপুজোয় ভারী মজা
সবাই করে ফুর্তি,
আমি শুধু তাকিয়ে দেখি
মা দুর্গার মূর্তি।
 
ডানদিকেতে দাঁড়িয়ে থাকে
লক্ষ্মী আর গণেশ,
ধীরে ধীরে মনের মধ্যে
জাগে ভক্তির উন্মেষ।
 
তাকিয়ে দেখি বামদিকেতে
সরস্বতী কার্তিক,
সবার মাঝে মা দুর্গা
অসীম শক্তির প্রতীক।
 
তার সাথে লেগেই আছে
খাওয়াদাওয়া কেনাকাটা,
সবাই মিলে ঘুরে ফিরে
কাটাই খুশির দিনটা।
 
পুজোর মেলায় ঘুরতে এসে
বলছি আমি সবার শেষে,
মন আমার আজ খুব ভালো
মেলায় বেশ মজা হল।
_____

No comments:

Post a comment