ছড়া-কবিতা:: গল্পের হাটে - উপাসনা পুরকায়স্থ


গল্পের হাটে
উপাসনা পুরকায়স্থ

ভোরবেলা উঠে দরজাটা খুলে দিলে
দেখবে কত কী, পাখিরা উঠোনে নাচে -
বাতাসেরা এসে উড়িয়ে দিচ্ছে চুল,
ফুল ফুটে আছে রানির মতোই গাছে!
দরজা খুললে ঘরে ঢুকে যাবে রোদ
খুশিতে খুশিতে আলপনা দেবে এঁকে -
পাড়া ঘুরে-টুরে পুষিটা আসবে ছুটে,
কোলে ওঠে যাবে কালিঝুলি গায়ে মেখে
ছুটির দিনটা ওড়ে চাঁদিয়াল হয়ে
বাঁধভাঙ্গা খুশি, দিদিও রয়েছে ঘরে -
নাচ গান খেলা - আসর জমবে কত,
মায়ের ভাবনা, মেয়েদুটো কী যে করে!
ঠামি বলে - “ওরে খাট যদি ভেঙে পড়ে
বিছানা চাদর সব এলোমেলো করে -
নেত্য জুড়েছো - একে বুঝি খেলা বলে,
লাফঝাঁপ শুধু - টেঁকাই যাবে না ঘরে!”
খাটের তলায় আচারের শিশি খুলে
হাত দুটো ভরে, খেয়ে নেব চেটেপুটে -
ছুটির এদিনে বাবাও রয়েছে ঘরে,
আমাদের সাথে হঠাৎ এসেই জুটে

মা বলে যখন - “যাও তাড়াতাড়ি চানে
সব কিছু যেন এলোমেলো হয়ে যায় -
খাবার টেবিলে একসাথে বসি যেই,
গল্পের হাটে - পুষি আসে পায় পায়
_____
ছবিঃ সুমিত রায়

No comments:

Post a comment